কম্পিউটার এবং ইনফরমেশন সিস্টেম বিষয়ে গ্রাজুয়েশনের পর ভালই চলছিল হারুনুর রশিদের চাকরী। একটি সফটওয়্যার কম্পানিতে বিজনেস ডেভেলপমেন্টে কাজ করছিলেন। কিন্ত অনলাইন ব্যবসার প্রতি আগ্রহ অনেকদিন ধরে, অল্প একটু প্রস্তুতি নিয়ে হুট করে চাকরী ছেড়ে দিয়ে নেমে পরলেন পুরোদম ব্যবসায়। ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারীতে শখের পণ্য ঘড়ি নিয়ে যাত্রা শুরু করলো ই-বনিক। ২০১৭ এর সেপ্টেম্বর থেকে স্টোরিয়া প্লাটফর্ম ব্যবহার করছেন। আজকে শুনবো ই-বনিকের প্রতিষ্ঠাতা হারুনুর রশিদের উদ্যোক্তা হয়ে উঠার গল্প।

 

ebonik6

ব্যবসা শুরুর গল্পটি আরেকটু বিস্তারিত শুনতে চাই…

ব্যবসা কিছু একটা করবো চিন্তা করে চাকরির পাশাপাশিই ছোট খাট আইডিয়া নিয়ে কাজ করছিলাম। শুরুতে প্রোডাক্ট নিস পছন্দ করা এবং সেই অনুযায়ী প্রোডাক্ট সোর্সিংয়ের জন্য মাঠে নেমেই ধাক্কা খাই। অভিজ্ঞতা তেমন ছিল না, পুঁজি ছিল কম, সুবিধা করে উঠতে পারছিলাম না। ভাবলাম নিজে যেই প্রোডাক্ট ভাল চিনি জানি সেরকম কিছু একটা দিয়েই শুরু করা উচিত। নানান রকমের ঘড়ি পরা এবং সংগ্রহ করা আমার শখ, তাই ঘড়ির ব্যবসাই সিরিয়াসলি করার চিন্তা করলাম। প্রথমে পুরান ঢাকার পাইকারি বাজার থেকে এবং পরে চায়না থেকে ঘড়ি আনতে থাকি। এর মধ্যে চাকরিটাও ছেড়ে দিই, মাথার মধ্যে চিন্তা ছিল ছোট করে হলেও নিজের ব্যবসা দাঁড় করাবোই।

শুরুর দিনগুলো ছিল অনেক চ্যালেঞ্জিং। ফেসবুকের অ্যাড অ্যাকাউন্ট ফ্ল্যাগ হওয়া থেকে শুরু করে নিজের দীর্ঘদিনের ব্যক্তিগত ফেসবুক অ্যাকাউন্টও হারাই। সাপ্লাইয়ারের সাথে ডিল, ফেসবুকে বিজ্ঞাপণের কৌশল, ডেলিভারির ঝামেলা হরহামেশাই ছিল, তবে প্রতিদিনই শিখার চেষ্টা করেছি। আজ দুই বছর পরে সবকিছুই অনেক সহজ হয়ে গিয়েছে। স্টোরিয়া প্লাটফর্ম ব্যবহার করে নিজেই নিজের ওয়েবসাইট সাজিয়ে নিয়েছি, ব্যবসার ম্যানেজমেন্টের ঝক্কিঝামেলা কমে গিয়েছে।

 

এতদিনের উপলব্ধি একটাই, যে কোন ব্যবসার সফলতার জন্য পরিশ্রম, অধ্যবসায় আর ভাল কাস্টমার সার্ভিসের কোন বিকল্প নেই।

 

E Bonik3

 

কি ধরণের মার্কেটিং কৌশল আপনার অনলাইন ব্যবসা প্রসারে ভূমিকা রাখছে?

আসলে সব ধরণের ডিজিটাল মার্কেটিং মিডিয়ামই ব্যবহারের চেষ্টা করি। তবে ফেসবুকে মার্কেটিং বেশি করা হয়। এছাড়া ওয়েবসাইটের এসইও, গুগল পিপিসি মার্কেটিংও করি। ফেসবুকের পাশাপাশি টুইটার, ইন্সটাগ্রামে নিয়মিত পোস্ট করি। পিন্টারেস্টে বিজনেস অ্যাকাউন্ট চালাই। অকেশনাল ডিস্কাউন্ট কোড সহ প্রমোশন করি। আমার কাছে ফেসবুক এবং পিপিসি মার্কেটিংই বেশি কার্যকরী মাধ্যম।

 

E Bonik2

 

ব্যবসা পরিচালনা যেমন অর্ডার প্রসেস, প্রোডাক্ট ডেলিভারি, পেমেন্ট সিস্টেম, কাস্টমার সার্ভিস ইত্যাদি কিভাবে করছেন?

ফেসবুকের ইনবক্সেই বেশি অর্ডার পাই। অর্ডার প্রসেস করি স্টোরিয়া প্লাটফর্ম থেকে, ম্যানুয়াল অর্ডার প্লেসমেন্টও ব্যবহার করি। ডেলিভারি পার্টনার হিসেবে গোগো বাংলা এবং শপ-আপ আছে। বেশিরভাগ অর্ডারই ক্যাশ অন ডেলিভারির, কিছু পেমেন্ট বিকাশের মাধ্যমে নিই। কাস্টমার সার্ভিসে নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করি, আফটার সেলস সার্ভিস এ সবচেয়ে বেশি সমস্যা হয় ওয়ারেন্টি ইস্যুতে। এক্ষেত্রে বড় সহয়তা করে গোগো বাংলা, তাদের রিটার্ন পিক-আপ সিস্টেম আছে, তাদের মধ্যমেই ওয়ারেন্টি প্রদান করি।

 

ebonik4

স্টোরিয়া প্লাটফর্ম কেমন লাগছে?

স্টোরিয়ায় ওয়েবসাইট লোডিং টাইম অনেক ফাস্ট, এটাতে রেটিং ৪.৮/৫ দিবো। প্রোডাক্ট আপলোড, ভেরিয়েন্ট ম্যানেজ করার সিস্টেম চমৎকার। সহজ সুন্দর থিম এবং কাস্টমাইজ করাও সহজ। বিল্ট ইন এসইও ব্যবহার করাও সহজ। ইনভেন্টরি এডিট করার ক্ষেত্রে একটু ঝামেলায় পরি, স্টক পরবর্তীতে বাড়ানো যায় কিন্তু কমানো যায় না। ম্যানুয়াল অর্ডার ফিচারটি ব্যবহার করি। আর ই-বনিকের সুন্দর লোগোটি কিন্তু স্টোরিয়ারই করা। সুবিধাজনক সার্ভিস সাবস্ক্রিপশন সিস্টেম। সব মিলিয়ে অনলাইন ব্যবসার জন্য দারুন প্লাটফর্ম!

 

ebonik5

স্টোরিয়ার কোন বৈশিষ্ট্য বা ফিচার আপনার বেশি ভাল লাগে এবং কেন?

সবচেয়ে ভাল লাগে স্টোরিয়ার কাস্টমার সার্ভিস, তৌফিক ভাই (ম্যানেজার, অপারেশন্স) খুবই আন্তরিক, কোন সমস্যা হলে দ্রুত সমাধান পাওয়া যায়। আর প্লাটফর্ম স্টোরিয়ার বৈশিষ্ট্য যেটা ভালো লাগে তা হল সুন্দর একটা সিস্টেম সহজ করে বানিয়েছেন তারা যেটা কম টেকনিক্যাল জ্ঞান থাকা মানুষও পরিচালনা করতে পারবে। তাছাড়া ব্লগে স্টেপ বাই স্টেপ সবকিছু লিখা আছে, এটা খুবই চমৎকার।

 

যারা নতুন ই-কমার্স ওয়েবসাইট বানাতে চাচ্ছে বা অনলাইন বিজনেস সলিউশন খুঁজছে তাদের জন্য কি স্টোরিয়াকে সুপারিশ করবেন? কেন?

ই-কমার্স ওয়েবসাইট বানাতে আমরা সবাইতো কম বেশি সিএমএস উকমার্স ব্যবহার করি। স্টোরিয়া প্লাটফর্ম কিন্তু পায়নিয়ার ই-কমার্স প্লাটফর্ম শপিফাইয়ের আদলেই তৈরি। এবং আমার কাছে যতেষ্ঠ কার্যকরীই মনে হয়েছে। স্টোরিয়ার ফ্রি ট্রায়াল প্যাকেজ আছে, আমি বলি স্টোরিয়া একবার ব্যবহার করে দেখুন, ক্ষতি তো নেই ট্রাই করে দেখতে। তাদের প্লাটফর্ম আরো উন্নত হোক, মানুষ ব্যবহার করুক, দেশের টাকা দেশেই থাকুক, সবাই মিলে ই-কমার্স সেক্টরকে আমরা এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই।

 

এরকম আরো Powered by Storrea ওয়েবসাইট দেখতে এবং সেই উদ্যোক্তার গল্প শুনতে ভিজিট করুন Customer Stories

(Visited 197 times, 1 visits today)
0

Comments