ঈদের ব্যস্ততা শেষ। কেনাকাটার বিরতি চলবে কিছুদিন। তারপর আবার শুরু হবে ব্যস্ততা। ঈদের পরে মাস খানেক অনলাইন অফলাইন যে কোন ব্যবসায় কিছুটা ধীরগতি লক্ষ্য করা যায় যা খুব স্বাভাবিক। কিন্তু কৌশলী ব্যবসায়ী মাত্রই এই হালকা অবসরের সময়গুলোকে স্বদব্যবহার করে থাকেন। অনলাইন ব্যবসায়ীরা এই সময়গুলোকে কিভাবে কাজে লাগাতে পারেন চলুন জেনে নেই।

 

ব্যবসার আইনগত কাজগুলো সেরে ফেলতে পারেন

অনলাইনে নতুন বা অনেকদিন ধরে ব্যবসা করছেন, কিন্তু সময়ের অভাবে বা না জানার কারণে ব্যবসার বৈধতার কোন কাগজপত্র তৈরি করেন নি। এখন এই অবসর সময়েই এই কাজগুলো এগিয়ে নিতে পারেন। এই সময়ে সরকারি অফিস আদালতেও ভীড় কিছুটা কম থাকে। তাই আপনার ব্যবসার ট্রেড লাইসেন্স, TIN করার কাজটি শেষ করে ফেলতে পারেন। ট্রেড লাইসেন্সের বিস্তারিত এবং কিভাবে করবেন জানতে চোখ বুলিয়ে নিন এখানে। এছাড়াও কোম্পানির ব্যাংক অ্যাকাউন্ট করতে বা বৈদেশিক মুদ্রার ডেবিট/ক্রেডিট কার্ডও করে নিতে পারেন এই অবসরে। গুগল মাই বিজনেস পেইজ না থাকলে সেটির আবেদনও করে রাখতে পারেন।

 

বানিয়ে ফেলুন নিজের ই-কমার্স ওয়েবসাইট

এত দিন ফেসবুক পেইজ বা গ্রুপের মাধ্যমে অনলাইন ব্যবসা করেছেন। আপনি নিজেও জানেন অনলাইন ব্যবসা করার প্রধান কার্যকরী প্লাটফর্ম নিজের ই-কমার্স ওয়েবসাইট, নিজের পছন্দের ডোমেইন নেমও হয়তো কিনে রেখেছেন, কিন্তু ব্যস্ততা বা কিভাবে করবেন এগুলোর চিন্তায় আর ওয়েবসাইট করা হয়ে উঠেনি। অনেকে হয়তো ওয়েবসাইটের কাজ শুরু করেছিলেন কিন্তু সঠিকভাবে সাজানো এবং পণ্য আপলোড করার কাজ বাকি রয়ে গেছে, তারাও এই সময়ে নিজের ওয়েবসাইটের সবকিছু ঠিক করে নিতে পারেন। আবার আপনার ব্যবসার ধরণ, পরিধি এবং পরিচালনা কৌশল অনুযায়ী এই মুহুর্তে ই-কমার্স ওয়েবসাইটের দরকার আছে কিনা তাও পর্যালোচনা করে নেয়া দরকার। কোয়ালিটি ওয়েবসাইটের বৈশিষ্ট্য বা সাইটে কি কি উপাদান রাখবেন তা জানাও গুরুত্বপূর্ণ। আর সবচেয়ে সহজে, দ্রুততম সময়ে এবং সাশ্রয়ী খরচে নিজের ওয়েবসাইট বানাতে আধুনিক প্রযুক্তির SAAS প্লাটফর্ম স্টোরিয়া ব্যবহার করে দেখতে পারেন।

 

ওয়েবসাইটের SEO করে ফেলুন

হয়তো আপনার ওয়েবসাইট আছে কিন্তু তা সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজড না। তবে আপনার করণীয় আছে অনেক কিছু। ওয়েবসাইট যদি SEO ফ্রেন্ডলি না হয় তাহলে কাস্টমার সার্চ ইঞ্জিনে পণ্য খুঁজতে গিয়ে আপনার ওয়েবসাইট খুঁজে পাবেন না। এই ফ্রি টাইমে আপনি আপনার পণ্যের কিওয়ার্ড রিসার্চে সময় দিতে পারেন। এছাড়াও অন পেইজ SEO যেমন মেটা টাইটেল, মেটা ডেস্ক্রিপশন ইত্যাদি নিয়েও কাজ করে রাখতে পারেন।

 

বিজনেস টিপস এবং ট্রিকস শিখুন

 

মার্কেটিং স্ট্রাটেজি নিয়ে আরো চিন্তা করুন

এতদিন হয়তো শুধু ফেসবুকে মার্কেটিং করে গেছেন, ফেসবুকে বুস্ট দিয়েই সেল করে গেছেন। কিন্তু অনলাইন ব্যবসার মার্কেটিং ফেসবুকের বাইরে আরো অনেক প্রক্রিয়ায় করা যায়, ফেসবুকের অ্যাডভান্স মার্কেটিং নিয়েও কাজ করা যায়। সেগুলো নিয়ে একটু পড়াশোনা করুন। দীর্ঘমেয়াদী মার্কেটিং স্ট্রাটেজি ঠিক করুন এবং ক্যাম্পেইনগুলো ডিজাইন করুন। প্রচলিত ধারণার বাইরে মার্কেটিং এ কিভাবে নতুনত্ব আনা যায় এবং কাস্টমারকে আরো এঙ্গেজ করা যায় চিন্তা করুন। আপনার ব্যবসার জন্য প্রাসঙ্গিক অফলাইন মার্কেটিং সুযোগগুলো কিভাবে লাগানো যায় ভাবুন। মার্কেটিং এর বিস্তারিত কলাকৌশল জানতে পারবেন এখান থেকে।

 

কন্টেন্ট ডেভেলাপ করুন

ব্যবসার খানিক এই বিরতিতে আপনি ব্যবসার জন্য প্রয়োজনীয় ডিজিটাল কন্টেন্ট তৈরিতে সময় দিতে পারেন। সবচেয়ে ভাল হয় ফেসবুক পেইজ, ওয়েবসাইটের পাশাপাশি ব্লগ সাইট মেইনটেইন করা। ব্যবসা সম্পর্কিত কন্টেন্টগুলো ব্লগে সাজিয়ে রাখুন। এছাড়া পরিকল্পনা মাফিক গ্রাফিক কন্টেন্ট তৈরি করে রাখতে পারেন। নতুন পণ্যগুলোর ছবি ঠিকমত তোলা না হয়ে থাকলে ফটোগ্রাফি করে নিতে ভুলবেন না। ভিডিও কন্টেন্ট সবসময়ই ভিজিটর এঙ্গেজিং, তাই পণ্যের ভিডিও রিভিউ, ব্যবসার প্রোমো ভিডিও এগুলোও তৈরি করতে পারেন। কন্টেন্টে বৈচিত্র্য রাখার চেষ্টা করবেন এবং সেজন্য চাই প্রচুর ব্রেইনস্টর্মিং এবং চর্চা। অলস সময়গুলো কাজে লাগান।

 

পার্টনারশিপগুলো মজবুত করুন

ঈদের পরে সকল ব্যবসায়ীই কিছুটা ফ্রি সময় পান। এই সময়ে আপনার ব্যবসার বিভিন্ন পার্টনারশিপসগুলো নিয়ে আরেকবার ভাবুন, কিভাবে সম্পর্কগুলো আরো ভাল এবং মজবুত করা যায় সেই কর্মপরিকল্পনা সেরে নিন। পণ্যের আরো ভাল সোর্স পাওয়া যায় কিনা, ইতিমধ্যে যাদের সাথে কাজ করছেন তাদের সাথে নতুন কোন ডিল হতে পারে কিনা, কোন কোন মার্কেটপ্লেসের সাথে চুক্তিবদ্ধ হবেন, কুরিয়ার বদলাতে হবে কিনা, মার্কেটিং পার্টনার এর সাথে বসে ভবিষ্যত ক্যাম্পেইনগুলো ডিজাইন করা, সব মিলিয়ে পার্টনারশিপগুলো নিয়ে স্ট্রাটেজিক চিন্তাভাবনা কিন্তু এই অবসরেই করতে পারেন।

 

ব্যবসার সামগ্রিক পর্যালোচনা করুন

এখনো যদি কি ব্যবসা করবেন, কিভাবে করলে ভাল হয়, কোন পণ্য নিয়ে কাজ করবেন, দাম কিভাবে নির্ধারণ করবেন, কিভাবে পরিকল্পনা করবেন এগুলো নিয়ে চিন্তা করে থাকেন তাহলে চট করে পড়ে নিন এই লেখাটি। এছাড়া এখন পর্যন্ত আপনার ব্যবসা কেমন চলছে, যেই KPI গুলো সেট করেছিলেন সেই অনুযায়ী ব্যবসার অবস্থান কি এগুলো পর্যালোচনা করতে হবে। কোন কোন জায়গায় আশানুরুপ ফলাফল আসেনি, কোথায় আরো উন্নতির সুযোগ আছে সেগুলো খুঁজে বের করতে হবে। বিজনেস রিপোর্টস গুলো থেকে অ্যানালাইসিস করুন। এর বাইরে বাজেটিং, লাভ ক্ষতি, দেনা পাওনা এগুলোর হিসাব তো আছেই। বিজনেস মডেল টাও চাইলে আরেকটু ঘষাঁমাজা করে নিতে পারেন। সামনের দিনে ব্যবসার গতিপ্রকৃতি কোন দিকে কিভাবে করতে চান সেগুলো সুনির্দিষ্ট করুন।

 

ঈদের বাইরে সবাই ব্যস্ত সময় কাটান, স্বাভাবিকভাবেই ব্যবসা পরিচালনার নিত্যচাপে এসব নিয়ে ঠান্ডা মাথায় বেশি সময় দেয়া হয় না বা এক্সিকিউট করা হয়ে উঠে না। ঈদ পরবর্তী এই অবসরে একজন অনলাইন বিক্রেতা হিসেবে আপনার উচিত হবে এই সময়গুলো যথাযত ব্যবহার করা যেন আপনি আপনার ব্যবসার কাঠামো আরো মজবুত করতে পারেন, পরিকল্পনাগুলো কাজে লাগিয়ে পরবর্তী সময়ের জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত থাকতে পারেন। সবার জন্য শুভকামনা। আবারো ঈদের শুভেচ্ছা।

 

আধুনিক ই-কমার্স প্লাটফর্ম চাই

(Visited 517 times, 1 visits today)
0

Comments