অনলাইনে দুনিয়ায় সাইট থেকে সাইটে মানুষ ঘুরছেই। ফেসবুক, জিমেইল, ইয়াহু মেইলের বাইরেও মানুষ যখন অন্য কোন সাইটে যায় তারা কেনাকাটার বাইরেও সাইটের অন্যান্য কিছু দেখতে চায়। আর তাদের দেখার জন্যেই সাইটে রাখা চাই মানসম্মত কন্টেন্ট। আধুনিক ওয়েবসাইটে এধরনের অনেক কন্টেন্ট থাকে যা ক্রেতাকে আকর্ষণ করে সহজেই।

 

আপনার সাইটের কনটেন্ট বলতে কি আপনি শুধু ব্লগ কিংবা ফটো এ্যালবাম বুঝেন? তাহলে বড় ধরনের ভুলের মাঝে আছেন। গুগলের ডাইনামিক্স আর ইউজারদের চাহিদা দুটোই দিন দিন পাল্লা দিয়ে বাড়ছে। এখন ইন্টারনেটে কনটেন্ট গুনে হয়ত শেষ করা যাবে না, কিন্তু কোয়ালিটি কনটেন্ট এখনো হাতে গোনাই। আপনি যদি কনটেন্ট ঠিকমত সাইটে ব্যবহার করতে পারেন, অনলাইন ট্র্যাফিক তো বাড়বেই, সাথে সাথে আপনার ব্র্যান্ড বিল্ডিঙেও ভুমিকা রাখবে। তাছাড়া গুগলের র‍্যাংকিং এ আপনার সাইটটিও উপরে উঠে আসবে।আমরা আজ কিছু উল্লেখযোগ্য কনটেন্ট স্ট্রাটেজি নিয়ে আলোচনা করব।

ব্লগ

সবচেয়ে সহজ আর ইফেক্টিভ কৌশল। আপনার সাইটে প্রোডাক্ট, ইন্ডাস্ট্রি ট্রেন্ড কিংবা আপনার কোম্পানির বর্ণনা নিয়ে ব্লগ সাজিয়ে ফেলুন। ব্লগটি যদি পপুলার হয় তাহলে সার্চ র‍্যাঙ্কিং এ আপনার সাইট উপরে উঠে আসবে। ব্লগে চলতি যেকোন হট টপিক থেকে উঠে আসতে পারে হালের যেকোন জগৎ নাড়িয়ে দেয়া ঘটনা। আর এই ব্লগপোস্ট গুলো শেয়ার করুন আপনার ফেসবুক পেইজে কিংবা ইমেইল মার্কেটিং এর মাধ্যমে আপনার ক্রেতা দের কাছে।

ইনফোগ্রাফিক্স

গুরুত্বপূর্ণ তথ্যউপাত্ত কোন একটি ছবির মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলাকে ইনফোগ্রাফিক্স বলে। আপনার সাইটে যদি আপনি সুচিন্তিত ও আকর্ষণীয় ইনফোগ্রাফিক্স দিতে পারেন, নিঃসন্দেহে সাইটে হিট বাড়তে সহায়তা করবে। আপনার সাইটের ক্রেতা শুধু আপনার প্রোডাক্ট কিনেই সন্তুষ্ট থাকেন না। একটি Take Home Messageযদি তার সাথে করে দিয়ে দিতে পারেন তবে মানুষ অবশ্যই মনে রাখবে আর ফিরে আসবে বার বার কেনাকাটা করতে।

ভিডিও

অতিপরিচিত সাইট Youtube, একটি ভিডিও শেয়ারিং সাইট যার ফাউন্ডারদের একজন বাংলাদেশি। আমাদের অজানা তথ্যটি হল এই সাইটটি সার্চ ইঞ্জিনের র‍্যাঙ্কে দুই নাম্বার অবস্থানে আছে। আপনার কোম্পানি, প্রোডাক্ট কিংবা ওয়েবসাইটটি নিয়ে ছোটখাট একটি ভিডিও বানাতে খুব একটা কষ্ট হবে না। নিজে যদি বানানোর মত সময় না থাকে তাহলে খুব কম খরচে অনলাইনে ভিডিও বানিয়ে ফেলতে পারবেন। সাজানো গোছানো আর অর্থবহ একটি ভিডিও যদি আপনি আপলোড করতে পারেন, তাহলে খুব অল্প সময়ে বিশাল অনলাইন ট্র্যাফিক আপনার হাতের নাগালে চলে আসবে। সাইটের About Us পেইজে নিজের প্রোডাক্ট নিয়ে তথ্যবহুল ভিডিও আপনি আপলোড করতে পারেন সহজেই। অথবা আপনার প্রোডাক্টগুলো ব্যবহারের জন্যে থাকতে পারে টিউটোরিয়াল।

মজার মজার পোস্ট

সেন্স অফ হিউমার ভালো থাকলে আপনি খুব সহজেই মানুষকে আপনার দিকে আকৃষ্ট করতে পারবেন। আপনি যদি মজার একটি মিম(meme) বানিয়ে পেজে বা সাইটে শেয়ার করেন, ট্রেন্ড অনুযায়ী সেটা খুবই হিট হবে, আর ছবি যত হিট হবে আপনার সাইটের হিটও তত বাড়তে থাকবে। তবে খুব সাবধান থাকবেন যাতে আপনার মিম বিতর্কিত নাহয়; কোন গোষ্ঠী কে আহত না করে।

প্রোডাক্ট রিভিউ এবং গাইডলাইন

আপনার সাইটে কাস্টমারদের প্রোডাক্ট সম্পর্কিত ফিডব্যাক দেয়ার অপশনটি রাখার চেষ্টা করবেন। সতর্ক কাস্টমাররা আপনার প্রোডাক্ট রিভিউ খুব মনোযোগ দিয়ে পড়ে দেখবে।

একটি প্রবলেম বেছে নিন, প্রোডাক্ট সম্পর্কিত হতে পারে বা নাও হতে পারে, এরপর স্টেপ বাই স্টেপ প্রবলেমটির সমাধান লিখে ফেলুন। এধরনের প্রবলেম সলভিং গাইডলাইন গুগল বটদের কাছে আপনার সাইটের র‍্যাঙ্ক আরো উপরে তুলে দিবে।

হট টপিকে হ্যাশট্যাগ

খুব তাড়াতাড়ি যদি আপনি লাইম লাইটে আসতে চান তাহলে এই টেকনিকটি নিতে পারেন। একটা উদাহরণ দিলে বুঝতে সহজ হবে। কিছুদিন আগে আইসিসি ওয়ার্ল্ড টি২০ টুর্নামেন্ট এর সময় বাংলাদেশ ক্রিকেট টিমকে নিয়ে বেশ কয়েকটি হ্যাশট্যাগ  ফেসবুকে একটা ট্রেণ্ড চালু হয়েছিল। আপনার ফেসবুক থেকে দেখে নিতে পারেন ট্রেন্ডিং টপিক কি? যদি আপনার আপনি যদি আপনার পেজ থেকে এই ইস্যুতে খুব সুচিন্তিত একটি পোস্ট দিতে পারেন, খুব কম সময়েই আপনার পেজ পপুলারিটি পেয়ে যাবে। কিন্তু ঘন ঘন এটি না করাই ভাল, আপনার ব্র্যান্ড ইমেজের উপর বাজে প্রভাব ফেলতে পারবে। আর যেকোন বিতর্কিত ইস্যু এড়িয়ে চলাই বুদ্ধিমানের কাজ।

প্রোডাক্ট ফটোগ্রাফি

আপনার সাইটের প্রোডাক্ট এর ছবিগুলো সুস্পষ্ট আছে কিনা কিংবা সব ধরনের এঙ্গেল কভার করছে কিনা একটু যাচাই করে নেওয়া ভালো। হয়তো আপনি নিজে বুঝতে পারবেন না। নিরপেক্ষ কাউকে জিজ্ঞেস করে জেনে নিন আসলেই সেটি ক্রেতা সাধারণের মনের চাহিদা পূরণ করতে পারছে কিনা।

 

বুঝতেই পারছেন ব্লগ ছাড়াও আরো কত কনটেন্ট স্ট্রাটেজি আছে। আপনার মাথা থেকেও হয়ত আরো নতুন আর ইফেক্টিভ কিছু বের হবে যা অনলাইন মার্কেটিঙের মোড় ঘুরিয়ে দেবে। দেরি না করে আপনার সাইটটিকে সঠিক কনটেন্ট দিয়ে সাজিয়ে তুলুন আর নতুন নতুন এক্সপেরিমেন্ট করতে থাকুন। আর ওয়েবসাইট তৈরির প্রাথমিক সুবিধা এখন Storrea তে খুব সহজেই পাওয়া যাবে। নিজের একটি ইকমার্স ওয়েবসাইট বানিয়ে নিতে আপনার সময় লাগবে ১ ঘণ্টারও কম সময়। এরপর শুধুই মনের মাধুরী মিশিয়ে নিজের ওয়েবসাইট বানানোর পালা।

 

নিজের একটি ইকমার্স সাইট এখন খুবই সহজ

(Visited 480 times, 1 visits today)
2

Comments