একটি ই-কর্মাস স্টোরের প্রধান এবং সর্বাপেক্ষা গুরুত্বপূর্ন জিনিসটি হলো পণ্য। যে কোন ভিজিটরের অনলাইন স্টোর ভিজিট করার প্রথম এবং প্রধান কারণই হল পণ্য কেনা, কিন্তু অনেকসময় বিক্রেতারা পণ্যকে সঠিকভাবে তুলে ধরার ব্যাপারটাকেই অবহেলা করেন। কাস্টমার অনলাইন স্টোর থেকে পণ্য কিনতে বেশিরভাগ সময়ই দ্বিধাদ্বন্দে থাকেন কারন পণ্যটি হাতে নিয়ে দেখা যায় না বা অনুভব করে কেনার সুযোগ থাকেনা। তাই পণ্যটির বিপননের জন্য সুনির্দিষ্ট ছবির সাথে পণ্যটির সঠিক এবং বিস্তারিত বিবরণের ভূমিকা অপরিসীম। পণ্যের খুঁটিনাটি বিবরণ যথাযথ ভাবে তুলে ধরে বিক্রেতা সহজেই ক্রেতার আস্থা অর্জনের মাধ্যমে পণ্যটি বিক্রয় করতে পারেন।

 

পণ্যের একটি সুন্দর বিবরণ কেন থাকা প্রয়োজনঃ

যতক্ষণ না পর্যন্ত কাস্টমার নিশ্চিত হচ্ছেন তিনি আসলে কি কিনতে যাচ্ছেন ততক্ষণ পর্যন্ত তিনি পণ্যটি ক্রয় করবেন না। ধরুন, অফলাইনে যখন কাস্টমার একটি টি-শার্ট কিনতে যান, তিনি টি-শার্টটি ধরে, ডিজাইন দেখে, সুতার কাজ বা সেলাইগুলো অনুভব করে, রঙের সামঞ্জস্যতা পরখ করে, সাইজ ট্রায়াল দিয়ে সবকিছু ঠিকঠাক মনে হলেই তিনি টি-শার্টটি ক্রয় করেন। ঠিক তেমনিভাবে অনলাইনে আপনি টি-শার্ট বিক্রয় করতে গেলে টি-শার্টটির কাপড়, ডিজাইন, সুতার কাজের ধরণ, রঙের বর্ণনা, সাইজের বর্ণনা (গলা/হাতা/কাধ/পেটের আলাদা আলাদা মাপ) ইত্যাদির বিস্তারিত তথ্য সংযুক্ত করতে হবে, নয়তো কাস্টমারের আস্থা অর্জন করা কঠিন। আবার আপনি যদি খাদ্যদ্রব্য বিক্রয় করতে চান তবে পণ্যের ইনগ্রিডিয়েন্টস, মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখ, বাড়তি ফ্লেভার ইত্যাদি সুনির্দিষ্ট করে তুলে ধরলে তা বিপননের জন্য সহায়ক হবে। তাই কাস্টমারের আস্থা অর্জনের উদ্যেশ্যেই পণ্যের একটি সঠিক সুন্দর বিবরণ থাকা উচিৎ।

 

পণ্যের বিবরণে কি লিখবেনঃ

কাস্টমার একটি পণ্য কিনতে গেলে যা যা জানতে চাইতে পারেন তার সবকিছুই সুন্দর করে গুছিয়ে পণ্যের বিবরণে লিখতে হবে। তবে মনে রাখবেন কখনোই চটকদারি ভুল তথ্য দিয়ে পণ্য বিক্রয় করতে যাবেন না। পণ্যের বিবরণ পণ্যভেদে বিভিন্ন তথ্যের মিশ্রণে হবে। ধরুন আপনি একটি ইলেকট্রনিক্স পণ্যের বিবরণ লিখতে নিচের তথ্যগুলো দিতে পারেন।

  • টেকনিকাল স্পেসিফিকেশন, বিভিন্ন সাইজ এবং কালার
  • ব্যবহার করার দিকনির্দেশনা (চাইলে ভিডিও লিঙ্ক যোগ করতে পারেন)
  • কাস্টমার রিভিউ (চাইলে ভিডিও লিঙ্ক যোগ করতে পারেন)
  • পণ্যটি আমদানীকৃত হলে কবে, কোন দেশ থেকে, কোন সোর্স থেকে আমদানী করা হয়েছে তাও উল্লেখ করতে পারেন

পণ্যের বর্ণনায় আপনার ব্র্যান্ড, পণ্যের ধরণ, পণ্যটিকে ঘিরে আপনার চিন্তাভাবনা ইত্যাদি গুছিয়ে সুন্দর করে তুলে ধরুন।

 

পণ্যের বিবরণে বৈচিত্র্য আনবেন কিভাবেঃ

আজকাল একই পণ্য বিভিন্ন অনলাইন স্টোরে পাওয়া যায়। সেক্ষেত্রে আপনি যদি পণ্যটি একটু ভিন্নভাবে তুলে ধরতে পারেন তবে তা কাস্টমারকে আকৃষ্ট করতে পারে। পণ্যের বিবরণে বৈচিত্র্যতা আনতে নিচের কৌশলগুলো প্রয়োগ করতে পারেন।

  • সত্যিকার, সুনির্দিষ্ট এবং প্রয়োজনীয় তথ্য দিন, অপ্রয়োজনীয় এবং ভূল তথ্য পরিহার করুন
  • পণ্যের বিবরণে একটি মেসেজ তুলে ধরুন কেন পণ্যটি ব্যাতিক্রম
  • পণ্যের বর্ণনার সাথে পণ্যটি ব্যবহারে কি কি সুবিধা হতে পারে উল্লেখ করুন
  • আপনার নিজস্ব ব্রান্ড বা ঐতিহ্যবাহী কোন ব্রান্ড হলে পণ্যের উৎপত্তি এবং ডিজাইন নিয়ে সংক্ষিপ্ত স্টোরিলাইন যোগ করতে পারেন
  • পণ্যটি কিনে বা ব্যবহার করে কাস্টমার কিভাবে সামাজিক বা পরিবেশের কল্যাণে ভূমিকা রাখতে পারেন সে ব্যাপারে উদ্বুদ্ধ করতে পারেন
  • আপনার টার্গেট কাস্টমার চিন্তা করে পণ্যের বর্ণনায় বৈচিত্র্যতা আনতে পারেন, অনেকসময় বর্ণনায় ক্যাসুয়াল ভাব আনতে পারেন যা অনেক সময় যুবসমাজকে আকৃষ্ট করে
  • পণ্যের পজিটিভ রিভিউ (দু একটা নেগেটিভ সহ!) ভিডিও আকারে তুলে ধরতে পারেন
  • পূর্ববর্তী কাস্টমারদের রিভিউ এবং রেটিং অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন
  • পণ্যের বিবরণে প্রাসঙ্গিক কিছু ভাইরাল key word ব্যবহার করতে পারেন যা সার্চ ইঞ্জিনে উঠে আসে
  • প্রতিটা পণ্যের অনন্য বিবরণ তুলে ধরুন, অন্য কোন জায়গা থেকে কপি করে লিখবেন না
  • পণ্যের বর্ণনার শব্দ চয়নে কৌশলী হোন, এমন শব্দ ব্যবহার করুন যা কাস্টমারকে আকৃষ্ট করে

 

মানসম্পন্ন পণ্যই একটি অনলাইন স্টোরের মূল শক্তি। আর পণ্যের সঠিক বিবরণ অনলাইনে আপনার বেচাকেনার সবচেয়ে বড় হাতিয়ার। তাই পণ্যের বিবরণ লিখতে বাড়তি যত্নবান হোন। শুভকামনা।

(Visited 274 times, 1 visits today)
1

Comments