ডোমেইনের গুরুত্ব এবং তাৎপর্য নিয়ে কিছুই নতুন করে বলার নেই। যেকোন অনলাইন উদ্যোক্তা মানেই জানেন এবং বুঝেন, তার ব্যবসায়িক ডোমেইন তার ব্যবসার সবচেয়ে প্রথম পরিচয়। যেকোন ব্র্যান্ড, যেকোন পণ্যের প্রাথমিক ধারণা পাওয়া যাবে তার ডোমেইন নেম থেকে। কোন এক অদ্ভুত কারণে আমাদের দেশের অনলাইন ব্যবসায়ীদের কে তাদের ব্যবসায়িক ডোমেইন নিয়ে আপাতদৃষ্টে উদাসীন মনে হয়। জমি কেনার সময় আমাদের মাঝে যে সচেতনতা কিংবা অতি উৎসুক আচরণ কাজ করে, ডোমেইন নেইম কেনার সময় সেই আন্তরিকতাটুকু চোখে পড়ে না। হয়তো ডোমেইনের দাম খুব বেশি নয় বলে। কিন্তু অনলাইন ব্যবসা যেহেতু একটি দীর্ঘমেয়াদী ব্যবসা, তাই কালে কালে এই ডোমেইনের দামই হয়ে যেতে পারে আকাশছোঁয়া। গুগুলের ডোমেইনের দাম কত হতে পারে একবার ভেবেই দেখুন না।

এই কথাগুলো বলা হলো শুধুমাত্র ডোমেইনের গুরুত্ব বুঝানোর জন্যে। নিচের লেখার উদ্দেশ্য ডোমেইন কেনা কিংবা নির্বাচন সম্বন্ধীয় নয়; বরং ডোমেইন এর এক্সপায়ারি এবং এই সংশ্লিষ্ট বিষয় আশয় নিয়ে।

ধরুন আপনার ডোমেইন টি এক্সপায়ার হয়ে গেলো। তার ভাগ্যে ঠিক কি পরিণতি ঘটেছে বুঝতে হলে কিছু শব্দের সাথে পরিচিতি আবশ্যক। আসুন প্রথমেই জেনে নেই কিছু Key Terms। এই Key Terms গুলো বুঝতে সাহায্য করবে ডোমেইনের মালিকানা আসলে কার সেটি বুঝতে।

The Registry

এনারা হচ্ছেন দণ্ডমুণ্ডের কর্তা। পৃথিবীতে যত টপ লেভেল ডোমেইন(TLD) আছে সেগুলো তাদের কাছেই নিবন্ধিত থাকে। এই সংগঠনের আওতায় যত টপ লেভেল ডোমেইন এভেইলেবল আছে সেগুলোর ডাটাবেজ থাকে। টপ লেভেল ডোমেইন হচ্ছে .com, .org, .xyz, .shop এরকম আরও হাজারো এক্সটেনশনের ডোমেইন। একেকটি TLD এক্সটেনশন একেকটি অর্গানাইজেশন এর আওতাধীন থাকে। যেমনঃ .com ডোমেইনটির দায়িত্ব আছে VeriSign.inc এর হাতে।

আর কান্ট্রি লেভেল ডোমেইনগুলো নির্দিষ্ট দেশের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্তৃপক্ষ দেখে। যেমন: আমাদের দেশে .com.bd ডোমেইনটির দায়িত্ব বিটিসিএলের হাতে।

The Registrar

রেজিস্ট্রাররা প্রাথমিক দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তি যারা ডোমেইন সরাসরি রেজিস্ট্রার করতে পারেন। দুর্ভাগ্যজনকভাবে এর একটি কোম্পানিও আমাদের দেশে নাই। তাই যাদের ডুয়াল কারেন্সি নেওয়া কার্ড নেই তারা চাইলেও এখান থেকে ডোমেইন কিনতে পারবেন না। বিশ্বব্যাপী পরিচিত রেজিস্ট্রার কয়েকটি কোম্পানি হচ্ছেঃ Namecheap.com, Godaddy.com, Name.com, Bluehost.com, Hostgator.com, Enom.com, Opensrs.com ইত্যাদি।

The Reseller

কোন একটি প্রতিষ্ঠান অথবা একজন ব্যক্তি যিনি রেজিস্ট্র্যান্ট এর পক্ষ হয়ে রেজিস্ট্রার এর কাছ থেকে ডোমেইনটি রেজিস্ট্রেশন করবেন। আমাদের দেশে যারা ডোমেইন বিক্রি করেন তারা সবাই প্রকৃতপক্ষে রিসেলার।

The Registrant

এটি আর কেউ নয়; আপনিই। যিনি ডোমেইন কিনেছেন অথবা কিনতে যাচ্ছেন।

ডোমেইন রিনিউয়াল এর খুঁটিনাটি

ডোমেইন কেনার এক বছরের মাথায় এর মেয়াদকাল শেষ হয়ে যাবে(যদি আপনি কেবল এক বছরের জন্যে ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন করেন)। অনেকেই আছেন এইসব ঝক্কি না পোহানোর জন্যে ডোমেইন প্যানেল এর অটো রিনিউয়াল এ ক্লিক করে রাখেন। অনেকেই আবার অটো রিনিউয়াল ফিচারটি বন্ধ করে রাখেন। ডোমেইন এর মেয়াদকাল শেষ হওয়ার  অনেক দিন আগে থেকেই আপনার কাছে মেইল যেতে থাকবে। এক্সপায়ারড ডেট এর আগে

এতোগুলো মেইলের ওয়ার্নিং উপেক্ষা করে ধরুন আপনি ডোমেইন রিনিউ করলেন না। কি হবে তখন? 

সাধারণত ডোমেইন এক্সপায়ার হওয়ার পরের পলিসি একেক রিসেলার এর কাছে একেকরকম। তবে সাধারণত বেশিরভাগ ডোমেইন রিসেলারই নিচের পলিসিগুলো অনুসরণ করেন।

Grace Period

ডোমেইন এক্সপায়ার হয়ে গেলেও রিসেলার কোম্পানি গুলো কিছুদিন সময় আপনাকে দিবে। এটি নির্ভর করে আপনার ডোমেইনের এক্সটেনশনের উপর। যেই এক্সটেনশন(ধরুন .com, .org, .info, .net ইত্যাদি)  তার রেজিস্ট্রির পলিসির উপর নির্ভর করে। Hover এর ক্ষেত্রে ৪০ দিনের একটি গ্রেস পিরিয়ড থাকে। এই সময়ের মধ্যে যদি ডোমেইন রিনিউ করেন তবে কোন আক্কেল সেলামি দিতে হবে না।

Redemption Grace Period

গ্রেস পিরিয়ড শেষ হয়ে গেলে ICANN এর নিয়মানুযায়ী আপনাকে ৩০ দিনের সময় দেয়া হবে। এই সময়ের মধ্যে আপনাকে ১৭৫ ডলার বিলম্ব জরিমানা দিতে হবে। আর সাথে রিনিউয়াল ফি তো আছেই। এর উপর কোন রিসেলার এর হাত নেই। এটি সম্পূর্ণভাবে ICANN এর নীতি।

Expired Domains

গ্রেস পিরিয়ড এবং রিডেম্পশন গ্রেস পিরিয়ড শেষ হয়ে গেলে এইবার আক্ষরিক অর্থেই আপনার ডোমেইনটি এক্সপায়ার হয়ে গেলো। এর উপর আপনার আর কোন অধিকার নেই। আপনার এই ডোমেইন টি এখন কেনার জন্যে সহজলভ্য হয়ে যাবে। এইবার এই ডোমেইনের ভাগ্যে বেশ কয়েকটি ঘটনা ঘটতে পারে। চলুন দেখে নেই সেগুলো কি কিঃ

  • Backorder

    কেউ যদি এই ডোমেইনের জন্যে আগে থেকেই অর্ডার দিয়ে রাখে তবে এই ডোমেইনটি খালি হওয়া মাত্রই তিনি একটি ইমেইল নোটিফিকেশন পাবেন। এবং তাৎক্ষণিক কিনে ফেলতে পারবেন। অবশ্যই দাম প্রথমবারের চেয়ে বেশি পড়বে।

  • Auction

    যদি এই ডোমেইনের কোন ব্যাকঅর্ডার না থাকে তবে এটি অকশন কিংবা নিলামে তোলা হবে। এর মধ্যে সর্বোচ্চ দর উপস্থাপনকারী এই ডোমেইনটি কিনে ফেলতে পারবেন।

  • Closeout

    যদি অকশনেও কোন ক্রেতা না পাওয়া যায় তবে তখন রিসেলার এটিকে ক্লোজ আউট প্রাইসে বিক্রি করার চেষ্টা করবেন। অন্য যেকোন সময়ের চেয়ে এইধাপে কিনলে সস্তায় পাওয়া যাবে যদি আদৌ ডোমেইনটি এই ধাপ পর্যন্ত আসে।

এই সব ধাপ পার হয়ে এলে ডোমেইনটি আবার উন্মুক্ত হয়ে যাবে জনসাধারণের জন্যে এবং একেবারে প্রথমবার যেরকম সুলভে পাওয়া গিয়েছিল, সেরকমভাবেই কেনা যাবে ডোমেইনটি।

হেলায় অবহেলায় আপনার ডোমেইনটি হারাবেন না। আপনার অনলাইন ব্যবসা যদি ক্লিক করে যায় তবে এই ডোমেইন নাম হারালে আপনার সমস্ত ব্র্যান্ডীং, মার্কেটিং আবার প্রথম থেকে শুরু করতে হবে। ডোমেইন সস্তায় কিনি আমরা ঠিকই, কিন্তু কালে কালে এটিই হয়ে উঠে আপনার সমস্ত অনলাইন পরিচয়ের ধারক ও বাহক।

 

বানান নিজের ডোমেইনে নিজের ইকমার্স স্টোর

(Visited 292 times, 1 visits today)
1

Comments